মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
মুন্সীগঞ্জে’র শ্রীনগরে ঠিকাদারের খামখেয়ালীর কারণে রাস্তার কাজ শেষ হয়নি  মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় প্রধান শিক্ষকের পদোন্নতির  আশায় কাটলো ২৭ বছর মুন্সীগঞ্জে ভোলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতিকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে মানববন্ধন আবুল খায়ের স্টিলের উদ্যোগে টঙ্গীবাড়ী’তে গৃহনির্মাণ কর্মশালা টঙ্গীবাড়ীতে মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত সিরাজদিখানে’র ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদে বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত  মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে রাস্তার উপর টানা অবৈধ ড্রেজারের পাইপ অপসারণ ধলেশ্বরী নদী’র তীর থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার নৌ পুলিশের শ্রীনগরে বিধবা এক নারীর সাথে ইউনিয়ন বিএনপি নেতার অশ্লীল ফোনালাপ ফাঁস শ্রীনগরে ভোক্তা অধিকারের অভিযানে চারটি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড 
নোটিশ

মুন্সীগঞ্জ সংবাদ - প্রকাশক ও সম্পাদক - মোহাম্মদ আলী রুবেল    +৯৭১৫৫৭৭৪৯৬৬৮ - সত্যের পথে নির্ভীক মোরা - আমরা সদাসর্বদা সত্য প্রচার করি

 

লঞ্চ থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগটি বানিয়ে বলেছিলো শিশুরা! 

মুন্সীগঞ্জ সংবাদ ডেক্স / ১২ বার
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

তুষার আহাম্মেদ- ভাড়া না দেওয়ায় মুন্সিগঞ্জ সংলগ্ন মেঘনা নদীতে ৪শিশুকে লঞ্চ “ইমাম হাসান-৫” থেকে নদীতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগটি পুলিশের কাছে বানিয়ে বলেছিলো শিশুরা। ঘটনায় নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় পুলিশের উদ্ধার করা শিশু  মেহেদুল এবং অপর দুই শিশু সিয়াম ও তরিকুল নিজেরাই বিষয়টি স্বীকার করেছে। মূলত চার শিশুর মধ্যে শাকিব অপর আরেক শিশুকে নদীতে ফেলে দেওয়ার পর বাকি ৩জন নিজেরাই নদীতে লাফিয়ে পরেছিলো। পরবর্তী ভাসমান অবস্থায় পুলিশ শাকিব ও মেহেদুলকে উদ্ধার করলে পুলিশের কাছে বিষয়টি লুকাতে শাকিব ও মেহেদুল মিথ্যা অভিযোগ করে। সোমবার রাতে এসংক্রান্ত একটি ভিডিও মুন্সিগঞ্জের সাংবাদিকদের হাতে এসেছে।
ভিডিওতে দেখা যায়, ভাসমান অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করা দুই শিশুর মধ্যে মেহেদুল (১৩ও অপর দুই শিশু সিয়াম(১০) ও তরিকুল (১০) ।
ভিডিওতে সিয়াম জানায়, সদরঘাট থেকে তারা লঞ্চে উঠেছিলো। সেখান থেকে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চঘাটে কাছে পৌছে মাজ নদীতে যাত্রী উঠা নামা করা ট্রলার যোগ তাদের পাড়ে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিলো। তবে মুন্সিগঞ্জে ট্রলার নামতে গেলে  করে ট্রলার চালকরা নামতে দেয় না। পরে চাঁদপুরের অভিমুখে চলতে থাকা লঞ্চ থেকে সঙ্গীদের নদীতে লাফ দিতে বলে সাকিব। তবে কেউ লাফ না দিলে সাকিব তাদের মধ্যে থাকা তরিকুলকে নদীত ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এরপর একে একে নদীতে ঝাপ দেয় অপর তিনজন। পরবর্তীতে সিয়াম ও তরিকুল সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও ভাসতে থাকে মেহেদুল ও শাকিব।
গজারিয়া থানা পুলিশের মাধ্যমে উদ্ধার হওয়া শিশু মেহেদুল জানান, নদীতে ভাসমান অবস্থায় পুলিশকে দেখে শাকিব  লঞ্চের স্টাফরা নদীতে ফেলে দিছে বলে পুলিশের কাছে বলতে শিখিয়ে দেয়। পরবর্তীতে পুলিশ তাদের উদ্ধার করলে শাকিব নিজেই পুলিশের কাছে বলে তাদের লঞ্চের স্টাফরা ফেলে দিয়েছে।
ভিডিওতে শিশুরা আরও জানায়, লঞ্চের স্টাফ ও পুলিশ কেউ  তাদের সাথে খারাপ আচরণ করেনি।


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com